1. bijogk@gmail.com : voice of mohalchhari : voice of mohalchhari
  2. info@www.voiceofmohalchhari.com : ভয়েস অফ মহালছড়ি :
বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ০৫:১১ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
মহালছড়িতে কল্পনা চাকমার অপহরণকারী লে.ফেরদৌস গংদের সাজার দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশে। ১৯০০ সালের রেগুলেশন বাতিলের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবিতে ইউপিডিএফের অবরোধ কর্মসূচি চলছে। মহালছড়িতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ। মহালছড়িতে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচনে ২০২৪-এ পদপ্রার্থী যারা। বান্দরবানে নিরীহ বম ছাত্র-ছাত্রী ও সাধারণ জনগণকে গণগ্রেফতার বন্ধের দাবিতে ইউপিডিএফের বিক্ষোভ মিছিল। স্থানীয় প্রশাসনের প্রতি বাজার বয়কট কমিটির আহ্বান। মাইসছড়ি বাজার বয়কট এক মাস স্থগিতের সিদ্ধান্ত। আন্তর্জাতিক নারী দিবসের পথিকৃৎঃ ক্লেরা জেটকিন দীর্ঘ আড়াই মাসের ও অধিক সময় মাইসছড়ি বাজার বন্ধ। খাগড়াছড়ি সদর ইউনিয়নে ধুল্যেতে সেনাবাহিনীর বাড়ি-ঘর তল্লাশি : জনমনে আতঙ্ক।

ইউপিডিএফ নেতা মিঠুন চাকমার ৬ষ্ঠ মৃত্যু বার্ষিকী পালিত মহালছড়িতে।

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: বুধবার, ৩ জানুয়ারী, ২০২৪
  • ১৪৬ বার পড়া হয়েছে

আজ ৩ জানুয়ারী, ২০২৪ রোজ বুধবার দুপুর ২টার সময় ইউপিডিএফ নেতা মিঠুন চাকমার ৬ষ্ঠ মৃত্যু বার্ষিকী পালন করেছে মহালছড়ি ইউপিডিএফ ইউনিট। ” পূর্ণস্বায়ত্তশাসনই পার্বত্য চট্টগ্রামের একমাত্র রাজনৈতিক সমাধান” ‘মিছিল- সভা- সমাবেশ ভুন্ডুল ও ঠ্যাঙাড়ে বাহিনী দিয়ে খুন-অপহরন করে আন্দোলন স্তব্ধ করা যাবে না’ ৩৫৬ জন শহীদের রক্ত বৃথা যেতে দেবো না- স্লোগানকে সামনে রেখে জনম চাকমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন ইউপিডিএফ সংগঠক বিজগ খীসা ও সিনিয়র সংগঠক মংগ্রী মারমা।

আলোচনা সভা শুরুর আগে মিঠুন চাকমা সহ এযাবতকালে গণতান্ত্রিক আন্দোলনের সকল বীর শহীদদোর উদ্দেশ্যে দাড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।
আলোচনা সভায়, মিঠুন চাকমার স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে বক্তারা বলেন, আজ হয়তো মিঠুন চাকমা, বিপুল, সুনীল, পলাশ,তপন, লিটন, এলটনরা আমাদের মাঝে বেঁচে নেই, কিন্তু তারা পার্বত্য চট্টগ্রাম ও দেশের মুক্তিকামী মানুষের কাছে অমর ও চির স্মরণীয় হয়ে থাকবেন। ঘাতকরা তাদের মেরে ফেলতে পারলেও তাদের চিন্তা-চেতনা, তাদের সৃষ্টিকে মেরে ফেলতে পারেনি। তাদের সৃষ্টি ও চিন্তা-চেতনা ধারন করে, তাদের আত্মত্যাগ থেকে প্রেরণা নিয়ে আমরা ও আমাদের নতুন প্রজন্ম এগিয়ে যাবে তাদের অধরা লক্ষ্যেকে সফল করতে।

বক্তারা আরো বলেন, মিঠুন চাকমার খুনিরা এখনো পার্বত্য চট্টগ্রামে কতিপয় সেনা অফিসার ও প্রসাশনের ছত্রছায়ায় বহাল তবিয়তে হত্যাকান্ড করে যাচ্ছে । একই বছরে স্বনির্ভর বাজারে এরা প্রকাশ্য দিবালোকে পুলিশ-বিজিবির সামনেই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে। সর্বশেষ গত ১১ ডিসেম্বর রাতের আঁধারে বিপুল,সুনীল,লিটন ও রুহিনকে হত্যা করেছে। এই খুনিরাই এখন জননিরাপত্তার চরম হুমকি হয়ে দেখা দিয়েছে। আর খুনিদের মদত, আশ্রয়-প্রশ্রয় দিচ্ছে সেনা-প্রশাসনের কতিপয় অসাধু কর্মকর্তা, যারা পার্বত্য চট্টগ্রামে অরাজকতা জিইয়ে রাখতে চায়।
তাই, এই খুনি, মুখোশ ঠ্যাঙারে বাহিনীর বিরুদ্ধে মুক্তিকামী জনগণ তরুণ ও ছাত্র সমাজকে রুখে দাঁড়াতে হবে এবং শহীদ মিঠুন, বিপুল, সুনীল, তপন, পলাশ চাকমাকে হত্যার সাথে জড়িত সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে আন্দলন গড়ে তুলতে হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: 𝐈𝐍𝐓𝐄𝐋 𝐖𝐄𝐁